ইসনাইন (সোমবার), ০৪ জুলাই ২০২২

ইভিএম’র ভুল ধরতে পারলে ১০ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার

মাদারিপুর প্রতিনিধি: ইভিএম প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান বলেন, ইভিএম নিয়ে অনেকে অনেক কথা বলেন। এজন্য আমরা আগামীতে দেশে নিবন্ধিত ৩৯টি রাজনৈতিক দলকে নিয়ে বসব। এখানে উপজেলা, জেলা, আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসাররা আছেন, আপনারা অফিসে ইভিএম রাখবেন যাতে করে মানুষ সেটা দেখতে পারে কিভাবে ভোট প্রয়োগ করতে হয়। অনেকে বলে এক জায়গায় ভোট দিলে অন্য জায়গায় চলে যায়। এ ধরনের ভ্রান্ত ধারণা দূর করতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের ইভিএম মেশিনের মতো সেরা মেশিন পৃথিবীর কোথাও নেই। রাজনৈতিক প্রতিটি দলে আইটি বিশেষজ্ঞ আছে তাদেরকেও আমরা আমাদের মেশিন দেখাব। তাদের হাতে ছেড় দেব, দেখান কোথায় ভুল আছে? আর কোন মেশিন কোথায় যাচ্ছে কেউ জানে না। ইভিএম এর কোনো ভুল, ত্রুটি যদি কেউ ধরতে পারে তার জন্যে আমাদের প্রধান নির্বাচন কমিশনার ১০ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা প্রদান করেছেন।

শনিবার দুপুরে মাদারীপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভায় নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান এসব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, নির্বাচন বা কমিশন সম্পর্কে আপনারা সত্যটা লিখবেন। এতে কেউ বাধা দেবে না। আপনারা সত্যটা লিখলেও জনগণ বিশ্বাস করে আবার অনেক সময় মিথ্যাটা লিখলেও জনগণ বিশ্বাস করে। তবে আমার অনুরোধ আপনারা সত্যটা লিখবেন।

নির্বাচন কমিশনার আরও বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক। বর্তমান কমিশনে আমরা যারা আছি সকলে জনগণের অধিকার জনগণকে প্রয়োগ করতে দেব। যত ধরনের বাধা বিপত্তি আসুক না কেন আমরা তা প্রতিহত করব। যদি প্রতিহত করতে না পারি তাহলে বসে থাকব না, চলে যাব।

মো. আনিছুর রহমান আরও বলেন, জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া কোনো কাজ করা যাবে না। যেমন ব্যাংকে হিসাব খোলা, জমি দলিল, মোবাইলের সিম ক্রয়, পাসপোর্টসহ অনেক কাজে বাধ্যতামূলক জাতীয় পরিচয়পত্র লাগে। এজন্য ভোটার তালিকা হালনাগাদকে গুরুত্ব দিতে হবে। যারা ভোটার হালনাগাদের তথ্য কম্পিউটারে এন্ট্রি দেবেন তারা খুব সর্তকতার সঙ্গে মানুষের নাম ঠিকানা লিখবেন। যাতে কোনো ভুল তথ্য না আসে। আগামী ১৫ জুন মাদারীপুরের কিছু ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন হবে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ। কোনো ধরনের জোর বা প্রভাব খাটানো যাবে না। নির্বাচনে যাতে কেউ কোনো ধরনের প্রভাব বিস্তার না করতে পারে সে জন্য আমরা কঠোর নজরদারি রাখব। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দিনের ভোট দিনেই হবে। রাতে কোনো ভোট হবে না।

মাদারীপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ঝোটন চন্দ এর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ফরিদপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোস্তফা ফারুক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাই লাউ মারমা।

Facebook Comments Box