ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ১৮ এপ্রিল ২০২১

আপত্তি সত্ত্বেও বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা খোলার অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির আপত্তির মুখেও ১৭ শর্তে দেশে বিদেশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শাখা ক্যাম্পাস খোলার অনুমোদন দেওয়া হলো। মোনাস কলেজ (অস্ট্রেলিয়া) স্টাডি সেন্টারের শাখা স্থাপন ও পরিচালনার সাময়িক অনুমতি দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
গত বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ বিদেশি প্রতিষ্ঠানটির শাখা ক্যাম্পাসের অনুমোদনের চিঠি জারি করেছে। দেশের সরকারি-বেসরকারি দেড় শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয় থাকার পরও বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের অনুমোদন উচ্চশিক্ষার বাণিজ্য ও নৈরাজ্য আরও বেড়ে যাবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশঙ্কা করছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়-১) শামিমা বেগম স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত স্টাডি সেন্টার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০ এবং বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রতিষ্ঠানের শাখা ক্যাম্পাস বা স্টাডি সেন্টার পরিচালনার বিধিমালা, ২০১৪’ এ বর্ণিত সকল বিধি-বিধান ও শর্ত মেনে চলবে।

চিঠিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মতোই ২৫ হাজার বর্গফুট ফ্লোর এলাকা এবং প্রত্যেক শিক্ষার্থীর স্থান সংকুলান হয় এমন পর্যাপ্ত পরিমাণ শ্রেণিকক্ষ থাকতে হবে। স্টাডি সেন্টার স্থাপন ও পরিচালনার ক্ষেত্রে নিজস্ব অথবা ভাড়া করা ভবনে অন্যূন ১০ হাজার বর্গফুট ফ্লোর এলাকা থাকতে হবে। পাঠদানের জন্য খ-কালীন শিক্ষক নিয়োগ করা যাবে। বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম সম্পর্কিত কমিশন অনুমোদিত একটি পরিকল্পনা থাকতে হবে। শিক্ষার্থী ভর্তি ফি, টিউশন ফি, ক্রেডিটের সংখ্যা, সেমিস্টারের অ্যাক্টিভিটি ফি এবং অন্যান্য ফি বাবদ ধার্য করা অর্থের মধ্যে উদ্যোক্তা, স্থানীয় প্রতিনিধি ও বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুপাতিক অংশহারে স্থানীয় প্রতিনিধি ও বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আনুপাতিক হারে বিভাজিত হতে হবে।
কমিশন নির্ধারিত তিন সদস্যের সমন্বয়ে একটি বোর্ড অব ট্রাস্টিজ থাকতে হবে। পাঠ্য তালিকায় কম্পিউটার সায়েন্স, ইঞ্জিনিয়ারিং বা প্রকৌশল বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকলে প্রতি পাঁচ জন শিক্ষার্থীর জন্য একটি কম্পিউটার এবং প্রাসঙ্গিক যন্ত্রপাতিসহ ল্যাবরেটরি স্থাপন করতে হবে।
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) অনুমোদনের শর্ত যথাযথ প্রতিপালনের বিষয়টি নিশ্চিত করবে। অনুমোদিত প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা হলেন এসটিএস গ্রুপের অ্যাডুকো বাংলাদেশ লিমিটেড।

প্রসঙ্গত, দেশে বর্তমানে ১০৭টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন রয়েছে।

মন্ত্রণালয় ও ইউজিসির কর্মকর্তারা বলেন, সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে দেশে দেড় শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয় আছে। আরও বেশ কিছু সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রতিটি জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। চালু থাকা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় শিক্ষার্থী সংকট রয়েছে। এর মধ্যে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ক্যাম্পাস পরিচালনার অনুমতি দেওয়া ঠিক হয়নি।

Facebook Comments